আকাশের নামে থানায় কিডন্যাপিং এর অভিযোগ করেছিলেন সাদিয়া সুলতানার বাবা। কোন বাধা তাদের দুজনকে আলাদা করতে পারেনি। হিন্দু সংহতির উদ্যোগে আকাশেক কাছে ফিরে এলো সাদিয়া সুলতানা শাহ।

ছেলেটি আকাশ প্রামানিক। মেয়েটি সাদিয়া সুলতানা শাহ। ছেলেটি কল্যাণী বিশ্ববিদ্যালয়ে ইতিহাসে এম এ পড়ছে। মেয়েটি কল্যাণী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজির ছাত্রী। দুজনে দুজনকে ভালোবাসে। পরিণাম সবারই জানা। কারণ, জায়গাটা মুর্শিদাবাদ। পালিয়ে আসতে বাধ্য হয়। তারপর বিভিন্ন জায়গায় লুকিয়ে থাকার অভিজ্ঞতা। সর্বশেষে হিন্দু সংহতির উদ্যোগে কোন এক আশ্রমে থাকার ব্যবস্থা করা হয়।

ভিডিও দেখুন

আকাশের বাড়ি ভেঙে দেওয়া হয়। আকাশের বাবা দীর্ঘদিন জেলে আবদ্ধ থাকে। এখন জামিনে মুক্ত। সুস্মিতা (সাজিয়া সুলতানা শাহ) র বাবা থানায় আকাশ এবং আকাশের পরিবারের বিরুদ্ধে কিডন্যাপিং এর মামলা করে। আকাশের মা, কাকা, কাকিমা, খুড়তুতো ভাইরা পালিয়ে থাকে বিভিন্ন আশ্রয়ে। সুস্মিতার বাবা একটি অডিও রেকর্ড জমা দেন কোর্টে। যেখান থেকে দেখা যায়, সুস্মিতা কাঁদতে কাঁদতে তার বোনকে ফোন করে অভিযোগ করছে, যে তাকে মুম্বাইয়ের পতিতালয়ে বিক্রি করে দেওয়া হয়েছে। যদিও ইতিমধ্যে সুস্মিতা আকাশের স্পেশ্যাল ম্যারেজ অ্যাক্টেই বিয়ে হয়ে গেছে।

কিন্তু কোন কিছুই বাগ মানাতে পারেনি আকাশ-সুস্মিতার ভালোবাসায়। কোন কিছুই হারাতে পারেনি হিন্দু সংহতির হার না মানা লড়াইয়ের মানসিকতায়।

আজ (03.03.2022) হাইকোর্টে আকাশ সুস্মিতার পিটিশনের শুনানি হল। হিন্দু সংহতির পক্ষ থেকে হিন্দু সংহতির কেন্দ্রীয় সহ সভাপতি শ্রী শান্তনু সিংহ মহাশয় নিজেই কেশ লড়েছেন। শান্তনু সিংহ বলেন, আন্দাজ করেছিলাম সুস্মিতার বাড়ির লোক হাইকোর্টে আসতে পারেন। তাই আকাশ ও সুস্মিতাকে হাইকোর্টে নিয়ে হাজির করানো হয়েছিলো। আন্দাজ ঠিকই হল। সুস্মিতার বাবার নিয়োজিত এডভোকেট ওই কিডন্যাপিং গল্পের সাথে ওই অডিওর কথা মাননীয় বিচারপতিদের আদালতে জানালেন। মাননীয় বিচারপতিরা হয়তো থমকে গিয়েছিলেন কিছুক্ষণের জন্য। কিন্তু যখন মাননীয় আদালতকে জানালাম, আকাশ এবং সুস্মিতা দুজনই কোর্টে হাজির আছে, তখন ওই মাননীয় জ্ঞানী এডভোকেট সুস্মিতা অরিজিনাল সাজিয়া সুলতানা শাহ কি না, এই প্রশ্ন তুললেন। যাইহোক, আমরা করলাম জয়।

আজকে কোর্টে হিন্দু সংহতির কেন্দ্রীয় সভাপতি দেবতনু ভট্টাচার্য্য এবং কেন্দ্রীয় সম্পাদক সাগর হালদার উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s