রায় পরিবারের দুর্গা পুজো, মন্দিরের মূল কাঠামো প্রায় ৭০০ বছর পূর্বে নির্মিত। এখানে দেবীর বোধন হয় ষষ্ঠীর ১৪ দিন পূর্বে। সপ্তমী, অষ্টমী, নবমীতে বলি হয়। এরমধ্যে যে কোন একদিন ওই বলির মাংস (অন্ন সহ) প্রসাদ হিসেবে গ্ৰহণ করেন ৫০০ র বেশী মানুষ।

মন্দিরের মূল কাঠামো প্রায় ৭০০ বছর পূর্বে নির্মিত। পূর্ব বর্ধমানের আউশগ্ৰাম বিধানসভার অন্তর্গত বিল্বগ্ৰাম অঞ্চলের বিল্বগ্ৰাম এলাকার দুর্গা মন্দির। এখানকার দুর্গা পূজা রায় পরিবারের দুর্গা পূজা বলে খ্যাত। এখানে দেবীর বোধন হয় ষষ্ঠীর ১৪ দিন পূর্বে। সপ্তমী, অষ্টমী, নবমীতে পাঠা বলি হয়। এরমধ্যে যে কোন একদিন ওই বলির মাংস (অন্ন সহ) প্রসাদ হিসেবে গ্ৰহণ করেন ৫০০ র বেশী মানুষ। পরিবারের বর্তমান কর্তা ৬৯ বছরের ব্রাহ্মণ দুলাল রায় (যিনি ওই পূজার পুরোহিত) নিজেই পাঠা বলি দেন। এখানকার আরেকটি বিশেষত্ব, সপ্তমী থেকে দশমী, এই চারদিন পূজা সংক্রান্ত পরিশ্রমের কাজগুলি যেমন ফল কাটা, রান্নার জোগান,রান্না পরিবেশন সব ছেলেরা করে। দেবী বরণ, মালা গাঁথা ইত্যাদি পূজা সংক্রান্ত মূল বিষয়গুলির অধিকার মহিলাদের হাতে। কিন্তু পরিশ্রমের কাজগুলি পুরুষদের করতে হবে। পরিবারের রীতি অনুযায়ী, মহিলারা সারা বছর সংসার সংক্রান্ত সব ঝামেলা সামলান।‌ তাদের প্রতি সম্মান প্রদর্শনের উদ্দেশ্যে ওই চারদিন খাটুনি সংক্রান্ত সব কাজ থেকে তাদের ছুটি। দুলাল রায়ের ছেলে (ছবিতে হিন্দু সংহতির অন্যতম সাধারণ সম্পাদক রজত রায় ও সুন্দর গোপাল দাসের সঙ্গে থাকা যুবকটি) অনুপম রায় প্রকৃত অর্থেই বিল্বগ্ৰাম অঞ্চলের হিন্দুত্বের পোস্টার বয়। ওখানকার হিন্দু যুবশক্তির প্রকৃত নেতা। তাদের পরিবার বংশানুক্রমিক ভাবে শাক্ত মতের উপাসক। দুর্গা, কালীর উপাসক। তার সাথে ওই এলাকার সংগঠন বৃদ্ধির বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করলেন রজত রায়। এইরকম যুবকদের সাথে আলোচনা হবার পর মনে হয় যে আশা আছে। বাংলার হিন্দুরা নিজেদের হোমল্যান্ড পশ্চিমবঙ্গকে সুরক্ষিত রাখতে পারবে।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s