লাহোরের দাতা দরবারে আত্মঘাতী বিস্ফোরণ চালালো তালিবান , মৃত ১০

লাহোরের দাতা দরবার সুফি সৌধের বাইরে আত্মঘাতী বিস্ফোরণে প্রাণ গেল ১০ জনের, আহত কমপক্ষে ২৪। নিহতদের মধ্যে তিন জন পুলিশ আধিকারিক, দু’জন নিরাপত্তারক্ষী এবং পাঁচ জন সাধারণ নাগরিক, যার মধ্যে একটি শিশুও রয়েছে। গতকাল ৮ই মে, বুধবার স্থানীয় সময় সকাল পৌনে ন’টা নাগাদ সৌধের মহিলা প্রবেশদ্বারের বাইরে বিস্ফোরণটি ঘটে। ২০১০ সালে সন্ত্রাসহানার পর থেকে এই সৌধে কড়া নিরাপত্তা থাকে। রমজান মাসে সেই নিরাপত্তা কয়েকগুণ বাড়ানো হয়। কিন্তু তাতেও হামলা এড়ানো গেল না। বিস্ফোরণের পর পুলিশের দোমড়ানো-মোচড়ানো গাড়ির ছবি সামনে এসেছে, তাতে প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে, পুলিশকে লক্ষ করেই হামলা চালানো হয়েছিল। পাকিস্তানি তালিবানের শাখা সংগঠন হিজবুল আহরার হামলার দায় স্বীকার করেছে। তবে সৌধে মহিলাদের প্রবেশের অধিকার দেওয়ার কারণেও এই বিস্ফোরণ ঘটানো হয়েছে বলে অনেকে মনে করছেন। কারণ তালিবান বরাবরই নারী স্বাধীনতার বিরোধী। এর আগে তালিবানের জিহাদিরা মেয়েদের শিক্ষার বিরোধিতায় স্কুল জ্বালানো, বিস্ফোরণ ঘটানোর মতো কাজ করেছে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, দাতা দরবার দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে বড় সুফি সৌধ। দাতা গঞ্জ বক্সির এই সমাধিসৌধে প্রতিবছর হাজার হাজার শিয়া ও সুন্নি মুসলিম ভিড় জমান। ২০১০ সালে একবার আত্মঘাতী হামলার শিকার হয়েছিল এই সুফি সৌধ। প্রাণ গিয়েছিল ৫০ জনের, আহত হয়েছিলেন ২০০-রও বেশি মানুষ।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s