বনগাঁ শহরে হিন্দু শরণার্থীদের নাগরিকত্বের দাবিসহ তিনদফা দাবিতে হিন্দু সংহতির গণ ডেপুটেশন

আজ ১৪ই ডিসেম্বর, শুক্রবার উত্তর 24 পরগনা জেলার অন্তর্গত বনগাঁ শহরে তিনদফা দাবিতে -সকলের জন্য বাধ্যতামূলক জন্ম নিয়ন্ত্রণ আইনের দাবিতে, বাংলাদেশ থেকে আগত হিন্দু শরণার্থীদের ভারতের নাগরিকত্বের দাবিতে এবং অবৈধ বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারীদের বিতাড়নের দাবিতে এক বিশাল মিছিল হয়।এই মিছিল বনগাঁ বাটার মোড় থেকে শুরু হয়ে শহরের কোর্ট রোড ঘুরে বনগাঁ এসডিও অফিসের সামনে শেষ হয়। সেখানে একটি পথসভা অনুষ্ঠিত হয়।সেই পথসভায় বক্তব্য রাখেন হিন্দু সংহতির সহ সভাপতি শ্রী সমীর গুহরায়, বনগাঁর প্রমুখ কর্মী শ্রী অজিত অধিকারী, জগন্নাথ মঠ-এর স্বামী বলভদ্র মহারাজ এবং শ্রী দীনবন্ধু ঘরামী। জগন্নাথ মঠ-এর স্বামী বলভদ্র মহারাজ তার বক্তব্যে বলেন যে, ”রাতারাতি দেশভাগ করে ভারত ও পাকিস্তান সৃষ্টি করা হয়েছিল। তারপরে তখনকার পূর্ব পাকিস্তান অর্থাৎ বর্তমান বাংলাদেশ থেকে অত্যাচারিত হয়ে আসা হিন্দুদের ডে ভারতকে নিতে হবে এবং সেইসঙ্গে তাদেরকে ভারতের নাগরিকত্ব দিতে হবে”। হিন্দু সংহতির সহ সভাপতি শ্রী সমীর গুহরায় তাঁর বক্তব্যে বলেন, ”হিন্দু সংহতির এই তিনদফা দাবির সমর্থনে এই আন্দোলন পশ্চিমবঙ্গের সমস্ত হিন্দুদের কল্যাণের জন্যে”। সেই সঙ্গে তিনি পশ্চিমবঙ্গের সমস্ত হিন্দুদেরকে হিন্দু সংহতির এই আন্দোলনে সমবেত হওয়ার আহ্বান জানান। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন হিন্দু সংহতির উপদেষ্টা শ্রী চিত্তরঞ্জন দে এবং সহ সম্পাদক শ্রী সুজিত মাইতি, সহ সম্পাদক শ্রী মুকুন্দ কোলে। SDO অফিসের সামনে পথসভার শেষে হিন্দু সংহতির সম্পাদক শ্রী সুন্দর গোপাল দাস-এর নেতৃত্বে চার সদস্যের এক প্রতিনধিদল SDO অফিসে গিয়ে তিনদফা দাবি সম্মিলিত একটি স্মারকলিপি জমা দেয়। মহকুমা শাসকের অফিস থেকে বেরিয়ে এসে হিন্দু সংহতির সহ সভাপতি শ্রী সমীর গুহরায় জানান, ভবিষ্যতে রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় এই আন্দোলন ছড়িয়ে দেওয়া হবে।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s