গরু ব্যবসায়ীদের আক্রমণের সামনে শক্ত প্রতিরোধ গড়ে তুললেন আদিবাসী হিন্দু মহিলারা

গত বুধবার অর্থাৎ 13/06/2018 তারিখ পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার কোতয়ালী থানার(সদর) 7 নং বনপুরা অঞ্চলের মহাদেব চক গ্রামে আদিবাসীদের উপর ঘটে গেল বিরাট পরিকল্পিত সাম্প্রদায়িক হামলা।পাশের গ্রামের গরু ব্যাপারী মথু – মহাদেব চকের ঠাকুর দাস টুডুর কাছ থেকে গরু কিনবে বলে ঘটনার দুদিন আগে অর্থাৎ 11 তারিখে 30000.00 টাকার গরুকে রাজী না হওয়া সত্ত্বেও জোর করেই 29000 টাকায় কিনবে বলে 100 টাকা দিয়ে চলে যায়। 13/06/2018 তারিখ এসে 29000 টাকা ঠাকুর দাসের পরিবারের সামনে ছুড়ে ফেলে দিয়ে পুরো টাকা না দিয়ে গরু নিয়ে যাওয়ার জন্য বচসা শুরু হয়।  আনুমানিক 30 মিনিট পর বিকেল তখন প্রায় 4.30 হবে পাশের গ্রামের বনপুরা ও অযোধ্যা নগর গ্রাম থেকে সানোয়ার মল্লিক(45) এর নেতৃত্বে 50-60 জনের মতো মুসলমান হাতে বোম পিস্তল (লাঠি, রডতো ছিলই) নিয়ে এসে আদিবাসী গ্রামে হামলা করে। এমনকি এই আক্রমণের সময় মুসলিমরা কয়েকজন আদিবাসী হিন্দু মহিলাদের শ্লীলতাহানি করে। জিহাদি মুসলমানদের এই আক্রমণ প্রতিরোধ করার জন্যে আদিবাসী মহিলারা তীর ছোঁড়েন জিহাদি মুসলমানদের দিকে লক্ষ্য করে। তাতে বেশ কয়েকজন মুসলমান তীরবিদ্ধ হন। তা দেখে সব মুসলিমরা পালিয়ে যায় এলাকা ছেড়ে। এই হামলায় পোলিও রোগজনিত কারনে অসুস্থ টিংকু সোরেনের(20) মাথায় কোপ মারে। তাতে টিংকু মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। টিংকুর চা দোকান সহ আশেপাশের দোকান ও ঘর লুটপাট করতে থাকে। টিংকুর চা দোকানের TV ও DTH সহ প্রায় 20000 টাকার মালপত্র লুটপাট করে পরে দোকান ভাঙচুর করে । পাশের দিলীপ সোরেনের গেরেজ ছিল 7-8 টি সাইকেল ও 2 টি মোটর সাইকেল সহ প্রায় 50000 টাকার দোকানের জিনিসপাতি নিয়ে যাওয়ার সময় দোকান ঘর ভাঙচুর করে। আরো পাশের আরো অনেকের ঘর ভাঙচুর করে।

এই আক্রমনে মহাদেবচকের টিংকু সোরেন (25) কাদু টুডু (24), লক্ষি হেমব্রম (45) গুরুতর জখম অবস্থায় হসপিটালে ভর্তি হয়। আর এমনিতেই সাবিত্রী সোরেন (30), চিতা টুডু (35), অঞ্জলি সোরেন (25), মদন টুডু (37), গুরুদাস মান্ডি (30) আহত হয়ে বাড়িতেই চিকিৎসা হচ্ছে।

বাড়ি ঘর ভাঙচুর ও লুটপাট হয় গাঁদা সোরেন (35) , বিরাম সোরেন (32) , চন্দনী সোরেন (মহিলা) (45), তপন মুর্মূ (60), কৃষ্ট মুর্মূ (28), লক্ষণ কিসকু (27), পানি টুডু (45) ইত্যাদি আদিবাসী ভাইবোনেদের। স্থানীয় আদিবাসী ভাই-বোনেরা জানিয়েছেন যে, এই আক্রমণ ছিল পরিকল্পিত। কারণ ঐদিন আদিবাসী গ্রাম প্রায় পুরুষশূন্য ছিল। কারণ আদিবাসীদের দাবিবাওয়া নিয়ে বিডিও অফিস ডেপুটেশন ছিল। তবে পুলিস খুব দ্রুত দোষীদের গ্রেপ্তার করেছে। মূল অভিযুক্ত গরু ব্যবসায়ী মথু কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিস। এই ঘটনায় আদিবাসীদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s