আসামের নগাওঁ জেলার কামপুরে হিন্দু গৃহবধূকে গণধর্ষণ করলো মুসলিমরা

আসামের নগাওঁ জেলার কামপুরে এক হিন্দু গৃহবধূ মুসলিমদের নৃশংস অত্যাচারের শিকার হলো। গত ১৫ই মার্চ, বৃহস্পতিবার প্রায় ৭-৮ জন মুসলিম দুষ্কৃতি ওই গৃবধূকে ধর্ষণ করে তার স্বামীর সামনেই। ঘটনাটি ঘটে জেলার কামপুরের কাকতি গ্রামে। ঐদিন রাতে ওই মুসলিমরা ওই দম্পত্তিকে কলংপার এক্সপ্রেস থেকে নামিয়ে নেয়। এরপর কপিলী নদীর পাশে স্বামীকে একটি গাছে বেঁধে তার সামনেই স্ত্রীকে গণধর্ষণ করে ওই মুসলিম দুষ্কৃতিরা।
মহিলার স্বামী কম্পুর পুলিশকে জানিয়েছেন,ট্রেনে করে শশুরবাড়িতে যাবার সময় ট্রেনে পরিচয় মরজদ  আলীর সঙ্গে।সে জাগিরোড স্টেশন থেকে ট্রেনে উঠেছিল।   মরজদ কাকতিগ্রামে একটি জলসা আছে বলে জানায়। পরে সে আমাদের জবরদস্তি ট্রেন থেকে আমাদের নামিয়ে নেয়। সেখানে থেকে আমাদের কপিলী নদীর পাশে নিয়ে যায়। ওখানে আরো বেশ কয়েকজন আগে থেকেই ছিল। ওরা আমাকে  প্রচন্ড মারধর করে গাছের সঙ্গে বেঁধে রাখে। ওদের কাছে অনেক কাকুতি-মিনতি করলেও ওরা আমার স্ত্রীকে ছাড়েনি।
তবে এই ঘটনায় নগাওঁ জেলা পুলিস সক্রিয় এবং দোষীদের গ্রেপ্তার করেছে গত ১৭ই মার্চ। ধৃতরা হলো  মরজদ আলী, এক্রামুল আলী, ফইজুল হক,হাবিবুর রহমান এবং চুলতান আলী। পুলিস  বাকিদের খোঁজ করছে বলে জেলার পুলিস সুপার জানিয়েছেন।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s