কাশ্মীরের ছাত্র সুহেলের কি জিহাদি গোষ্ঠীতে যোগ?

আলিগড়ের পরে ভুবনেশ্বর৷ আরও এক মেধাবী কাশ্মীরি ছাত্র নিখোঁজ  হয়ে গেলেন৷ আলিগড়ে নিখোঁজ  হয়েছিলেন মান্নান বশির ওয়ানি আর ভুবনেশ্বরে এইমস থেকে নিখোঁজ হয়েছেন সুহেল আইজাজ৷ দু’জনের বাড়িই কাশ্মীরে৷ মান্নান জঙ্গি দল হিজবুল মুজাহিদিনে যোগ দিয়েছেন বলে গোয়েন্দা সূত্রে খবর এলেও, সুহেল কেন নিখোঁজ হলেন, সেই বিষয়ে ওড়িশা পুলিশ এখনও পুরোপুরি অন্ধকারে৷ তবে তাৎপর্যপূর্ণভাবে  ভাবে কাশ্মীরের কুপওয়াড়ার বাসিন্দা সুহেলের রহস্যজনক গতিবিধির সঙ্গে কলকাতা যোগ খুঁজে পেয়েছে ওড়িশা পুলিশ৷ সুহেলের ব্যবহৃত মোবাইল টাওয়ার লোকেশন থেকে দেখা গেছে, তিনি কলকাতায় গিয়েছিলেন৷ শুধু তাই নয়, হাওড়া এবং ধর্মতলা চত্বরেও যে ওই ছাত্র গিয়েছিলেন সেই প্রমাণও ওড়িশা পুলিশের হাতে এসেছে বলে জানা গিয়েছে৷ এই বিষয়ে ওড়িশা পুলিশের তরফে পুরো বিষয়টি জানানো হয়েছে পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ এবং সিআইডিকে৷ তদন্ত এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য আজ, মঙ্গলবার কলকাতায় পৌঁছবে ওড়িশা পুলিশের বিশেষ দল৷ রাজ্য পুলিশের তরফে তাদের সম্পূর্ণ সহযোগিতা করা হবে বলে জানানো হয়েছে৷ সূত্রের খবর, ওড়িশা পুলিশের তরফে সুহেলের নিখোঁজ হওয়ার বিষয়টি ইতিমধ্যেই জানানো হয়েছে জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা এনআইএকে৷ দু’সপ্তাহ আগে ভুবনেশ্বরের অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অব মেডিকেল সায়েন্স (এইমস) থেকে রহস্যজনক ভাবে নিখোঁজ  হয়ে যান দ্বিতীয় বর্ষের ডাক্তারি ছাত্র সুহেল আইজাজ৷ পারিবারিক বিয়েতে যোগ দিতে চণ্ডীগড় যাওয়ার কথা বলে ভুবনেশ্বর থেকে বেরোন তিনি৷ সহপাঠীদের দাবি, সুহেলের ফেরার কথা ছিল ১৭ ফেব্রুয়ারী৷ এইমস ছাড়ার পরে সুহেল না ফেরায় পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু করে ওড়িশা পুলিশ৷ তদন্তে নেমে পুলিশ সুহেলের লেখা একটি চিরকুট পায়, যাতে লেখা ‘আই কুইট’৷ এই চিরকুট তদন্ত প্রক্রিয়াকে আরও বেশি জটিল করে তুলেছে বলে মনে করছেন ওড়িশা পুলিশের কর্তারা৷ ডাক্তারির মেধাবী এই ছাত্রের সঙ্গে কোনও উগ্রপন্থী সংগঠনের যোগাযোগ ছিল কি না, সেই বিষয়ে প্রাথমিক ভাবে খোঁজ খবর শুরু হয়েছে৷ রাজ্য পুলিশের এক উচ্চপদস্থ কর্তা স্পষ্ট করলেন গোটা বিষয়ে তাদের উদ্বেগের কথা৷ ওড়িশা পুলিশের ওই কর্তা বলেন, ‘‘একজন মেধাবী ছাত্র উধাও হয়ে গেল! প্রশ্ন হল, তিনি যদি পড়াশোনা ছাড়তে চান, তা হলে তার পিছনের কারণটা অবশ্যই খতিয়ে দেখতে হবে৷ এর আগে আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মেধাবী ছাত্রকে নিখোঁজ হতে দেখেছি৷ পরবর্তী কালে ওই ছাত্র একটি সন্ত্রাসবাদী দলে যোগ দিয়েছিলেন বলেও জানা গিয়েছে৷ তাই এ বার বিষয়টিকে বাড়তি গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে৷’’ ছেলের নিখোঁজের  খবর পেয়ে জম্মু-কাশ্মীর থেকে ওড়িশা গিয়ে পৌঁছেছেন তাঁর বাবা আইজাজ আহমেদ৷ তাঁকেও লাগাতার জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ৷ সূত্রের খবর, সুহেল কাশ্মীরে থাকাকালীন কাদের সঙ্গে বেশি মেলামেশা করতেন, তাদের নাম ও পরিচয় জানার চেষ্টা করছে পুলিশ৷ পড়াশোনার পাশাপাশি আর কোন কোন বিষয়ে তাঁর আগ্রহ ছিল, জানা হচ্ছে সেই বিষয়েও৷ সুহেলের সোশাল নেটওয়ার্কিং সাইটেও নজরদারি চালাচ্ছে পুলিশ৷ সুহেলের বাবা জানিয়েছেন, ছেলে চণ্ডীগড়ে যে বিয়েবাড়ির নাম করে এইমস থেকে বেরিয়ে যান, তেমন কোন বিয়ের কথা তাঁদের জানা নেই৷

৭ই ফেব্রুয়ারী, ছেলের সঙ্গে তাঁর শেষবার কথা হয়েছিল বলেও জানিয়েছেন সুহেলের বাবা৷ এই তথ্য জানার পরে আরও জটিল হয়েছে সুহেলের নিখোঁজ রহস্য, এমনটাই মনে করছে ওড়িশা পুলিশ৷

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s